হবিগঞ্জ শহরতলীর আলমপুরে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী


mdfaisalchowdhury mdfaisal প্রকাশের সময় : জুলাই ২, ২০২২, ৩:৫৮ অপরাহ্ন /
হবিগঞ্জ শহরতলীর আলমপুরে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী

স্টাপ রিপোর্টার: হবিগঞ্জ শহরতলীর আলমপুরে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী। গতকাল (১জুলাই) বিকেলে শহরতলীর আলমপুর গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে প্রতিপক্ষের টেটার আঘাতে মামুন মিয়া (৪৫) নামে একজন নিহত হয়। মামুন মিয়া বানিয়াচং উপজেলার ১০নং সুবিদপুর ইউনিয়নের ওই গ্রামের আমির আলীর পুত্র। এতে আরও আহত প্রায় ৩০ জন।

শনিবার (২জুলাই)  পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী সরেজমিনে সংঘর্ষের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি এলাকার লোকজন ও ভিকটিমের আত্মীয় স্বজনদের সাথে কথা বলেন। তিনি উক্ত ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত পূর্বক দ্রুত সময়ে জড়িতের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

স্থানীয়রা জানায়, আলমপুর গ্রামের রিপন ও সুহেল মিয়া নামের দুই যুবকের মধ্যে গত কয়েকদিন যাবত মোবাইল কেনা-বেচা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জের ধরে তারা শুক্রবার বিকেলে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার পুলিশ ও বানিয়াচং থানার পুলিশের কয়েকটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে মামুন মিয়া নামের এক যুবককে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পরিদর্শনের সময় উপস্থিত ছিলেন পলাশ রঞ্জন দে, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বানিয়াচং সার্কেল), হবিগঞ্জ, মোহাম্মদ এমরান হোসেন, অফিসার ইনচার্জ, বানিয়াচং থানা, জয় কুমার দাস, চেয়ারম্যান, ১০ নং সুবিদপুর ইউপি, বানিয়াচং, হবিগঞ্জ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিগণ ।