শোকের মাসে আ. লীগের কর্মসূচি


তরফ বার্তা প্রকাশের সময় : জুলাই ২৩, ২০২২, ১০:০৭ অপরাহ্ন /
শোকের মাসে আ. লীগের কর্মসূচি

শোকের মাসের কর্মসূচি চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ। শনিবার (২৩ জুলাই) বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির সহযোগী সংগঠন এবং ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের কেন্দ্রীয় নেতাদের যৌথসভায় এ কর্মসূচি চূড়ান্ত করা হয়। আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি সভায় যুক্ত হন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের শোকের মাসের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

শোকের মাসের প্রথম প্রহরে ১২টা ১ মিনিটে স্বেচ্ছসেবক লীগ বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর অভিমুখে আলোর মিছিল করবে। ১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু ভবন প্রাঙ্গণে রক্ত দান ও প্লজমা সংগ্রহ কর্মসূচি পালন করবে কৃষক লীগ।

৫ আগস্ট শহীদ শেখ কামালের জন্মদিন। এ দিন আওয়ামী লীগ, মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনগুলো শ্রদ্ধার্ঘ অর্পণ, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করবে। প্রথমে সকাল সাড়ে ৮টায় ধানমন্ডি আবাহনী ক্লাব এবং সোয়া ৯টায় বনানী কবরস্থানে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। সকাল ১১টায় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আলোচনা সভার আয়োজন করবে। ঢাকা মহানগর উত্তর এতিম ও দুস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করবে। ভার্চুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করবে বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটি।

৮ আগস্ট বঙ্গমাতা শহীদ শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিন। এ দিন শ্রদ্ধার্ঘ অর্পণ, মিলাদ, দোয়া, কোরআন খতম ও আলোচনা কর্মসূচি পালন করবে আওয়ামী লীগ, মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনগুলো। বাদ জোহর ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এতিমদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করবে।

১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারা দেশে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিত করা হবে। কালো পতাকা উত্তোলন করা হবে। সকাল ৭টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক স্মৃতি বিজড়িত ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হবে। তবে এটা রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর কর্মসূচির সঙ্গে সমন্বয় করে করা হবে।

ওই দিন সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে বনানী কবরস্থানে ১৫ আগস্টের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, ফাতেহা পাঠ, মোনাজাত ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হবে। সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, ফাতেহা পাঠ, মোনাজাত ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হবে। এই কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগের একটা কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল এবং গোপালগঞ্জ ও টুঙ্গিপাড়া আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত থাকবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন।

১৫ আগস্ট কেন্দ্রীয়ভাবে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদসহ দেশের সব মসজিদে দোয়া ও মিলাদ-মাহফিল, মন্দির, প্যাগোডা, গির্জাসহ অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা কর্মসূচির আয়োজন করা হবে। এ দিন সারা দেশে অসচ্ছল ও দুস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করা হবে। এছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রলীগ যেন চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা এবং বঙ্গবন্ধু ওপর রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে সে নির্দেশনা দেওয়া হবে। এছাড়া আওয়ামী লীগের বিভিন্ন উপ-কমিটি ও সহযোগী সংগঠনগুলো তাদের নিজেদের মতো কর্মসূচি ঠিক করে দলের দফতরে জানাবে। তাদের কর্মসূচি সমন্বয় করে দেবে আওয়ামী লীগ। ১৫ আগস্ট সারাদেশে গণভোজের আয়োজনও করা হবে।

১৭ আগস্ট সারা দেশে সিরিজ বোমা হামলা দিবস, ২১ অগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবসেও বিস্তারিত কর্মসূচি পালন করবে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলো। ২৪ আগস্ট আইভী রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে কর্মসূচি পালন করা হবে। ২৭ আগস্ট জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের মৃত্যুবার্ষিকীর দিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তার সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাবে আওয়ামী লীগ।